Today is  
 
Untitled Document
শিরোনাম : ||   আইসিওই'র প্রতিবেদন: রাখাইনে যুদ্ধাপরাধ সংগঠিত হয়েছে      ||   বাংলাদেশের নারীরা থাইল্যান্ডের বিপক্ষে জয় পেয়েছে      ||   ইরাকের মার্কিন দূতাবাসে ৩ বারের মত ইরানের রকেট হামলা      ||   হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রকাশ: দেশে ভোটার সংখ্যা ১১ কোটি      ||   রোহিঙ্গাদের অনিশ্চিত প্রত্যাবাসন: চীনের ব্যর্থ প্রচেষ্টা      ||   সমুদ্রপথে মালয়েশিয়াগামী ২৩ রোহিঙ্গা নাগরিক উদ্ধার      ||   পেকুয়ায় স্বামীর পরকিয়া সইতে না পেরে স্ত্রীর আত্মহত্যা!      ||   নাইক্ষ্যংছড়ির আফসানা ইসলাম রুমির সহকারী জজ পদে নিয়োগ পেলেন      ||   রোহিঙ্গাদের নিরাপদ পরিবেশে ফিরতে জাতিসংঘ কাজ করছে- ইয়াং হি লি      ||   জেলায় জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন সার্ভার চালুকরণে জনসচেতনতামুলক সভা      ||   আত্মসমর্পনকারি ১০১জন ইয়াবা কারবারির বিরুদ্ধে আদালতে পুলিশের চার্জশীট      ||   মহেশখালীতে অস্ত্রকারীগর গ্রেফতার      ||   মহেশখালীতে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন: আটক ৩      ||   সিপিবির সমাবেশে হামলা মামলায় ১০ জনের মৃত্যুদণ্ডদেশ      ||   চিত্র নায়িকা রত্নার ক্ষমা প্রার্থনা     
প্রকাশ: 2020-01-21     নিউজ ডেস্ক রোহিঙ্গা ও রাখাইন

রাখাইনে সেনাবাহিনীর ‘যুদ্ধাপরাধ’ স্বীকার করে নিলেও সেখানে কোনো ধরনের গণহত্যা হয়নি বলে দাবি করেছে মিয়ানমারের একটি ‘স্বাধীন’ তদন্ত কমিটি।দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট কমিশন অব ইনকোয়ারি (আইসিওই) নামের ওই কমিটি তাদের তদন্ত প্রতিবেদন সংক্ষিপ্ত আকারে প্রকাশ করে সোমবার দেশটির প্রেসিডেন্টের কাছে হস্তান্তর করে। জাতিসংঘের শীর্ষ আদালত যখন দেশটির বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার পরিকল্পনা শুরু করেছে, ঠিক তখন এই প্রতিবেদনটি আসল।

আইসিওই’র ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে, মিয়ানমারের রাষ্ট্রপতি এই কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন।

ফিলিপাইনের সাবেক উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোজারিও জি মানালোর নেতৃত্বাধীন কমিটিতে আরও তিন সদস্য আছেন: উ মায়া থেইন (মিয়ানমারের সাংবিধানিক ট্রাইব্যুনালের সাবেক চেয়ারম্যান), কেনজো ওশীমা (জাপানি কূটনীতিক) এবং প্রফেসর ড: অং তুন থেট (ইউনিসেফের সাবেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা)।

কমিটির সদস্যরা তাদের প্রতিবেদনে লিখেছেন, ‘নিরাপত্তা বাহিনীর কিছু সদস্য শক্তি ব্যবহার করে যুদ্ধাপরাধ করেছে। একই সঙ্গে নিরপরাধ গ্রামবাসীকে হত্যা করে তাদের ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে।’

এভাবে পুরো ঘটনা তুলে ধরলেও কমিটি বলছে, গণহত্যার মতো অপরাধের কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের অনেক আগে থেকেই নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। তাদের নির্যাতনের মাত্রা ছাড়িয়ে যায় ২০১৭ সালের আগস্টে। ওই সময় দেশটির সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে প্রায় ৮ লাখের মতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসতে বাধ্য হয়, যাদের মধ্যে অধিকাংশই মুসলমান।

জাতিসংঘসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন তদন্ত করে দেখেছে, রাখাইনে রীতিমতো গণহত্যা চালিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

আইসিওই’র এই প্রতিবেদনকে ‘ধবলধোলাই’ বলে মন্তব্য করেছেন গ্লোবাল জাস্টিস সেন্টারের প্রেসিডেন্ট আকিলা রাধাকৃষ্ণান, ‘রোহিঙ্গা গণহত্যার দায় এড়াতে এই কমিটির প্রতিবেদন মিয়ানমারের আরেকটি দেশজ ধবলধোলাই।’


রোহিঙ্গা ও রাখাইন
আইসিওই'র প্রতিবেদন: রাখাইনে যুদ্ধাপরাধ সংগঠিত হয়েছে

সমুদ্রপথে মালয়েশিয়াগামী ২৩ রোহিঙ্গা নাগরিক উদ্ধার

রোহিঙ্গাদের নিরাপদ পরিবেশে ফিরতে জাতিসংঘ কাজ করছে- ইয়াং হি লি

‘আইসিজে’তে গণহত্যা মামলার রায় পক্ষে পাওয়ার আশাবাদি রোহিঙ্গারা

‘এখনও রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব অধিকার থেকে বঞ্চিত করছে মিয়ানমার’

স্থানীয়দের স্বার্থ রক্ষায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাঁটাতার: সেনাপ্রধান

উখিয়ায় রোহিঙ্গার হাতে রোহিঙ্গা খুন

টেকনাফে রোহিঙ্গার হাতে রোহিঙ্গা খুন

রোহিঙ্গা ফান্ড কমেছে, বিপদের আশঙ্কা

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে মিয়ানমার আন্তরিক নয়-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 

উপদেষ্টা সম্পাদক: আবু তাহের
সম্পাদক: বিশ্বজিত সেন
প্রকাশক: আবদুল আজিজ

 

কক্সবাজার প্রেসক্লাব ভবন (২য় তলা),
শহীদ সরণি (সার্কিট হাউস রোড), কক্সবাজার।
ফোন:
০১৮১৮-৭৬৬৮৫৫, ০১৫৫৮-৫৭৮৫২৩।


ইমেইল :

news.coxsbazarvoice@gmail.com
  Copyright © Coxsbazarvoice 2019-2020, Developde by JM IT SOLUTION